You cannot copy content of this page. This is the right with takmaa only

পশ্চিমবঙ্গে কাটা ঠোঁট বা তালু কাটা চিরতরে বিদায় জানাতে “মুসকান” মানে “এক মুঠো হাঁসি”

অম্বর ভট্টাচার্য, এবিপিতকমা, কলকাতা, ২৬শে নভেম্বর ২০১৯ : ঠোঁট কাটা যে কোন প্রজন্মের কাছে একটা জ্বলন্ত সমস্যা। এই ঠোঁট কাটা বা তালু কাঁটার জন্য সমাজে অনেকভাবে হেনস্থা হতে হয় বা পিছিয়ে থাকতে হয়। এবার সেই ঠোঁট কাটা বা তালু কাটা থেকে মুক্তি দিতে দ্য হিমালয়া ড্রাগ কোম্পানি পশ্চিমবঙ্গে নিয়ে এসেছে তাদের ফ্ল্যাগশিপ উদ্যোগ “মুসকান” যার মাধ্যমে “ঠোঁট” কাটা বিষয়ে সচেতনতা প্রচার করা যায়। স্মাইল ট্রেন ইন্ডিয়ার সাথে যৌথ ভাবে উপস্থাপন করছে এক নতুন অভিযান “এক মুঠো হাসি” দ্য হিমালায়া ড্রাগ কোম্পানি পশ্চিমবঙ্গে তাদের ফ্ল্যাগশিপ উদ্যোগ “মুসকান” নিয়ে এসেছে পিছিয়ে পড়া শ্রেণীর শিশু যারা শিশু বয়স থেকে ঠোঁট কাটা সমস্যায় ভুগছে তাদের চিকিৎসার জন্য লিপ কেয়ার কলকাতার এক পাঁচতারা হোটেল এক মুঠো হাসি লঞ্চ করেছে।

হিমালয়া ও স্মাইল ট্রেন ইন্ডিয়া যারা বিশ্বে ঠোঁট কাটা বা তালু কাটা মোকাবিলার সব থেকে বড় দাতব্য সংস্থা। এই সংস্থা বিনামূল্যে ঠোঁট কাটা সার্জারির সুযোগ দিচ্ছে। এই অনুষ্ঠানে অভিজ্ঞ ডাক্তার বাবুরা জানালেন পশ্চিমবঙ্গের নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি ৭০০জনের মধ্যে এক জনের এই সমস্যায় আক্রান্ত হতে দেখা যায়। এই বিষয়ের উপর প্রচারের মুখ্য উদ্যেশ্য হলো এধরনের রোগীদের মুখে হাসি ছড়িয়ে দেওয়া। বিশিস্ট সঙ্গীত শিল্পী ঊষা উথুপ যিনি সবসময় সমাজের সেবা মূলক কাজের সাথে যুক্ত থাকেন, তিনি নিজে উপস্থিত থেকে এই উদ্যোগ কে সমর্থন জানিয়েছেন এবং উপস্থিত শিশুদের সাথে থেকে গান গেয়ে আনন্দ দিয়েছেন। এই অনুষ্ঠানের সার্থকতা নিয়ে বক্তব্য রাখেন বিজনেস ডিরেক্টর কনজিউমার প্রোডাক্ট ডিভিশন হিমালায়া ড্রাগ কোম্পানি রাজেশ কৃষ্ণমূর্তি। হিমালায়া ব্র্যান্ড এর মুলদর্শন “খুশ রহ খুশাল রহো”। এই অনুষ্ঠানে যে সকল মুখ্য অতিথিরা উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন তারা হলেন মিসেস মমতা ক্যারল, ডঃ পার্থ প্রতিম গুপ্ত, ডঃ এস. এ. ফায়জল। উপস্থিত ডাক্তারবাবুরা এই ঠোঁট কাটা সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায় বাতলে দেন। বলেন মাত্র ৪৫ মিনিটের অপারেশনে পুরোপুরি সেরে ওঠা সম্ভব অথচ এক পয়সা খরচ করার প্রয়োজন নেই, শুধু মাত্র সচেতন হলেই এটা সম্ভব হবে। তবে শিশুর বয়স ৬মাসের নিচে হলে ভালো হয়। উষা উথুপ বললেন শিশুরা আমাদের দেশের সম্পদ ও ভবিষ্যৎ। কাজেই কোন কিছুই তাদের সপ্নপুরণে বাধা হয়ে উঠতে পারে না। সকলেই শিশুদের মুখে হাসি দেখতে চায়, ঠোঁট কাটার কারণে হাসি চলে যাক এটা কেউ চায়না। একটু সচেতন হলে এই সমস্যা চির তরে চলে যাবে এবং শিশুরাও মন খুলে হাসতে পারবে। এই সংস্হা এই পরিষেবা এর আগে অন্য রাজ্যে দিয়েছে বলে জানা গেল এই সাংবাদিক সম্মেলনে। ডাঃ পার্থ প্রতিম গুপ্ত বলেন, আমার হাসপাতালে প্রায় ৪৫০০ শিশু রোগী আসে এই সমস্যা নিয়ে। এধরনের সমস্যা হলে শিশুকে ৪মাস বয়সে নিয়ে এলে তা একেবারে নিরাময় করা সম্ভব। এই সমস্যা অধিকাংশ ক্ষেত্রে দেখা যায় বংশগত, বাবা বা মায়ের অতিরিক্ত ধূমপান বা মদ্যপান বা অতিরিক্ত ব্যাথা বা অন্যান্য ওষুধ সেবনের জন্য হয়ে থাকে। ডাঃ এস এ ফায়জল বলেন, আমার বর্ধমানের হাসপাতালে বছরে প্রায় ৩০০০ শিশু এই সমস্যা নিয়ে আসে। এই সমস্যা থাকলে শিশুদের খাবার সমস্যা, কথা বলার সমস্যা, নিঃশ্বাসের সমস্যা, শ্রবন সমস্যা ছাড়াও সমাজিক ভাবে পিছিয়ে থাকতে হয় এবং বহুক্ষেত্রে হেনস্থা হতে হয়, এমনকি কর্মক্ষেত্রেও এই সমস্যা বাঁধা হয়ে দাঁড়ায়। তালু কাঁটার সমস্যা থাকলে ৮ থেকে ১০ মাসের মধ্যে নিয়ে আসা প্রয়োজনীয়। এরফলে তাড়াতাড়ি সমস্যা সমাধান করা যায়। তবে স্মাইল ট্রেন ইন্ডিয়ার সাথে যৌথ ভাবে দ্য হিমালায়া ড্রাগ যেভাবে এগিয়ে এসেছে তাতে এই সমস্যা থেকে আগামীদিনে মুক্তি পেতে চলেছে অধিকাংশ শিশু।অনুষ্ঠানে শেষে সঙ্গীত শিল্পী ঊষা উত্থুপ নিজের সঙ্গীত পরিবেশনায় শিশুদের মুখে হাঁসি ফোটান। প্রচারে : এন বি মার্কস। ছবি : রাজেন বিশ্বাস।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *