You cannot copy content of this page. This is the right with takmaa only

পৌরসভার মেয়াদ শেষ হলেও রাজপুর সোনারপুর পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ডের পৌরপিতা তরুণ একইভাবে পৌরপিতার ভূমিকা পালন করে চলেছেন

অম্বর ভট্টাচার্য, এবিপিতকমা, সোনারপুর, ১৬ই মে ২০২০ : রাজপুর সোনারপুর পৌরসভার মেয়াদ শেষ হচ্ছে ১৭ই মে ২০২০ কিন্তু সরকারের নির্দেশে হয়তো সব পৌরসভার মেয়াদ শেষ হয়ে গেলেও সেই চেয়ারম্যানই ফিরে পেতে চলেছে প্রশাসকের দায়িত্ব। চেয়ারম্যানের সাথে একই দায়িত্ব পালন করবেন সি আই সি সহ অন্যান্য পৌর প্রতিনিধিরা। রাজপুর সোনারপুর পৌরসভা তার বাইরে নয়। ৩৫টা ওয়ার্ডের বিদায়ী পৌর প্রতিনিধিরাই নিজস্ব ওয়ার্ডের দায়িত্বে থাকবেন বলে সূত্রে খবর।

রাজপুর সোনারপুর পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ড পরবর্তী বোর্ডে মহিলা সংরক্ষিত হলেও বিদায়ী পৌরপিতা একইভাবে মানুষের পাশে কাজ করার ব্যাপারে অবিচল। এই করোনা ভাইরাসের থাবায় তিনি ওয়ার্ড জুড়ে তাঁর ক্ষমতা অনুযায়ী মানুষকে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করছেন পাশাপাশি ছোট ছোট উন্নয়নের কাজও করছেন। তাঁর ক্ষমতা সীমিত হলেও তিনি অন্যান্য সমাজসেবী সংস্থাদের দিয়ে সাহায্য পাওয়ার ব্যাপারে বেশ উদ্যোগী হয়েছেন। কিন্তু এই ওয়ার্ড মহিলা সংরক্ষিত হওয়ার ফলে আগামী কে এই ওয়ার্ডের টিকিট পাবে তা কারও জানা নেই কিন্তু বিদায়ী পৌরপিতা তরুণ কান্তি মন্ডলের সে ব্যাপারে কোন হেলদোল নেই। তিনি জানান, আমি আজ পৌরপিতা আছি, কাল নাও থাকতে পারি। এছাড়া আমার ওয়ার্ড মহিলা সংরক্ষিত হয়েছে। দল যাকে টিকিট দেবে তাকেই দায়িত্ব নিতে হবে। কিন্তু যতদিন নির্বাচন না হচ্ছে ততদিন আমি আমার দায়িত্ব পালন করে যাবো যাতে মানুষের কোনভাবেই অসুবিধা না হয় এবং আমার ওয়ার্ডের মানুষ নিজেকে অসহায় না ভাবে। পৌরপিতা তরুণ কান্তি মণ্ডলকে মানুষের কাছে সাহায্য পৌঁছে দিতে অনেকটাই সহযোগিতা করছে ওয়ার্ডের তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি অরিন্দম দত্ত।

এর আগে তরুণ কান্তি মন্ডল বিশ্ববানী স্কুল থেকে ভারত সেবাশ্রমের সহযোগিতায় প্রায় ৫০০ জনকে খাদ্য সামগ্রী বলতে চাল, ডাল, আলু, বিস্কুট ও সোয়াবিন দেওয়ার ব্যবস্থা করেছিলেন। সাম্প্রতিক ওয়ার্ডের প্রান্তিক মানুষদের জন্য ফের ভারত সেবাশ্রমের সহযোগিতায় আবার বিবেকানন্দনগরের ১ নং-এর প্রায় ২৫০ জন দুঃস্থ মানুষকে খাদ্য সামগ্রীর মধ্যে চাল, তেল, আলু, সয়াবিন, সবজি ও বিস্কুট তুলে দিলেন। এব্যাপারে তরুণ জানান, এই এলাকার মানুষগুলো খুবই গরীব এবং খুবই অসহায় অবস্থায় লকডাউনে দিন কাটাচ্ছে। তাদের সাহায্য করাটা খুবই প্রয়োজন। এছাড়া ওয়ার্ডে অনেকেই ব্যক্তিগত ভাবে মানুষকে সাহায্য করছে। এতে ওয়ার্ডের মানুষের উপকার হচ্ছে।এই সাহায্যের সাথে আমার দলের অনেক কর্মী ও নেতারা যুক্ত তাদেরকে আমি উৎসাহিত করি এবং সাথে সাধুবাদ জানাই। এই সময় মানুষের পাশে সকলকে দাঁড়াতে হবে। আমি একা সকলের সমস্যা মেটাতে পারবো না। সকলে মিলে সাহায্য করলে মানুষ অনেকটা উপকৃত হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *