You cannot copy content of this page. This is the right with takmaa only

শ্রবনশক্তিহীন শিশুদের চিকিৎসার মাধ্যমে সম্পূর্ণ সুস্থ করা সম্ভব : চন্দন সাহা

অম্বর ভট্টাচার্য, এবিপিতকমা, কলকাতা, ২৮শে ডিসেম্বর ২০১৯ : জন্ম থেকে বহু শিশু শুনতে পায় না আর তার ফলেই তাদের বাচনশক্তিও থাকে না। আবার এমনও জয় প্রথমে শ্রবনশক্তি থাকলেও পরে গিয়ে কোন কারণে তাঁরা শ্রবনশক্তি হারিয়ে ফেলে।

এই বিষয়ে অজয়নগরের ডেসিবেল হিয়ারিং ক্লিনিকের অন্যতম চন্দন সাহা জানান, এই সংস্থা ২০০৭ সালে শুরু হয় এবং নিরলসভাবে শ্রবনশক্তিহীন শিশুদের চিকিৎসার মাধ্যমে সুস্থ্য ও স্বাভাবিক করে তুলতে সক্ষম হয়েছে। আমাদের এই সংস্থা থেকে এমনও শিশু আছে যারা আজ সমাজে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এন আই আই টি তে আমাদের এখানে চিকিৎসাধীন শিশু সাফল্যের সাথে উত্তীর্ণ হয়ে কাজ করছে। রাজ্য সরকার ও কেন্দ্র সরকার এই চিকিৎসার জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়েছে। আমরা সবসময় বলি শিশু জন্মানোর পর যদি শ্রবনশক্তিতে কোন সমস্যা আসে তাদের সাথে সাথে নিয়ে এলে স্বাভাবিক করে তোলা সম্ভব।চিকিৎসার পর তাদের দেখলে কেউ বুঝতেই পারবে না যে একসময় তাদের শ্রবনশক্তির কোন সমস্যা ছিল। আমাদের একটাই চিকিৎসাকেন্দ্র এছাড়া আমাদের লেক টাউনে একটা ফ্রাঞ্চাইজি আছে।

সাম্প্রতিক অজয়নগরে সংস্থার বাৎসরিক অনুষ্ঠানে শিশুদের সাথে উপস্থিত ছিলেন মিস বিদিশা বাল্যন (মিস ওয়ার্ল্ড ২০১৯ ডেফ)। বিদিশা শ্রবণশক্তিহীনদের এক জ্বলন্ত উদাহারণ। বিদিশা ২০১৭ সালে ওয়ার্ল্ড ডেফ অলিম্পিকেও ভারতের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করে এবং ২০১৯ সালে জাতীয় পুরস্কার লাভ করে। সংস্থার পক্ষ থেকে কৃত্তিকা সাহা জানান, আমাদের এখানে চিকিৎসার জন খরচ কমপক্ষে ৩০০০০ টাকা।আমাদের এখানে অনেকে বেশি বয়সেও আসে, তাদের একটু সময় লাগলেও অনেকটা সুস্থ্য হয়ে ওঠে। অনুষ্ঠানে বিদিশা বলেন, আমি তোমাদের মত ছিলাম কিন্তু আমার মা-বাবাকে নিজের আত্মবিশ্বাস দিয়ে মুখে হাঁসি ফুটিয়েছি। প্রচারে লঞ্চার্স।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *