You cannot copy content of this page. This is the right with takmaa only

গড়িয়া স্টেশন এখন স্পর্ষকাতর এলাকা হিসাবে ঘোষণা হতে চলেছে, করোনায় আক্রান্ত ৩ জন, এলাকায় আতঙ্ক

অম্বর ভট্টাচার্য, এবিপিতকমা, সোনারপুর, ৭ই মে ২০২০ : করোনার কারণে কেন্দ্র সরকারের ঘোষণা অনুযায়ী দঃ ২৪ পরগণার সোনারপুরের কালিকাপুর গ্রাম পঞ্চায়েত, রাজপুর সোনারপুর পৌরসভার ১৪ নং ও ২১ নং ওয়ার্ডকে স্পর্ষকাতর এলাকা হিসাবে আগেই ঘোষিত হয়েছিল। এবার সেই তালিকায় যোগ হতে চলেছে রাজপুর সোনারপুর পৌরসভার ৩ নং, ৪ ও ৫ নং ওয়ার্ডের সীমান্ত এলাকা আর্জনগরে ও ৬ নং ওয়ার্ডের সাহাপাড়া। গত তিনদিনে এই তিন ওয়ার্ডে তিনজনের মধ্যে ২ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে খবরে প্রকাশ। ৩ নং ওয়ার্ডে একজন ৭২ বছর বয়সী চায়ের দোকানের ব্যবসায়ী, ৪ নং ও ৫ নং ওয়ার্ডের সীমান্ত এলাকার একজন চিকিৎসকের বাড়িতে পরিচারিকা ছিলেন এবং করোনার সংক্রমণের সন্দেহে কোয়ারেন্টিনে নিয়ে যাওয়া হয়েছে আর ৬ নং ওয়ার্ডে একজন অসুস্থ বৃদ্ধার মধ্যে করোনার সংক্রমণের পাওয়া গেছে বলে সূত্রে খবর।

নরেন্দ্রপুর থানার পক্ষ থেকে বহুবার মানুষকে সচেতন করার জন্য প্রচার করা হয়েছে সামাজিক দুরত্ত্ব বজায় রাখতে, বাড়িতে থাকার অনুরোধ জানানো হয়েছে এবং টহলদারি চালানো হয়েছে যাতে সময়ের পরে কোন দোকান খোলা না থাকে। এদিকে গড়িয়া স্টেশনের সান্ধ্য বাজার, কিশান মজদুর বাজার ও মাছের কাটা আগেই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।কিন্তু তাতেও মানুষ সেভাবে সচেতনতা বজায় রাখে নি। বাজারে মানুষের ঢল দেখা গেছে স্থানীয় বাজারগুলোয়।

আজ ৩ নং ওয়ার্ডে করোনা আক্রান্তের জন্য শিবতলা এলাকায় জীবাণুমুক্ত করার কাজ হয়। সমস্ত পাড়া জুড়ে জীবানুমুক্তের কাজ করে দমকল বাহিনী। এমনকি যে বাড়িতে করোনা সংক্রমণের রোগী ছিল সেই বাড়িকেও জীবাণুমুক্ত করা হয়।এলাকা জীবাণুমুক্ত করার সময় উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় পৌরমাতা অশোকা মির্ধা।এখন দেখা হচ্ছে কারা এই চায়ের দোকানে গিয়ে চা সেবন করেছেন, তাদের মধ্যেও কি এই সংক্রমণ ছড়িয়েছে কিনা।

আগামীকাল বিধায়ক ফিরদৌসী বেগম ও সি আই সি নজরুল আলি মন্ডলের উদ্যোগে এবং সোনারপুর তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি পাপাই দত্ত-র সহযোগিতায় নবশ্রী বাজার জীবাণুমুক্ত করা হবে সকাল ৯টা থেকে। এছাড়া পাপাই দত্ত জানান, বিধায়কের সাথে আলোচনা করে আগামীকাল খোলা থাকবে নবশ্রী বাজার কারণ বাজার বন্ধ করে দিলে ব্যবসায়ীরা বিপদে পড়তে পারে, তাই আগামীকাল বাজার খোলা রাখা হলেও ৯ই মে থেকে ১৭ই মে পর্যন্ত নবশ্রী বাজার বন্ধ রাখা হবে।বিধায়কের নির্দেশে বাজার ব্যবসায়ীদের সাথে আলোচনা করার পর এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আগামীকাল এই মহিলাকে যেখান থেকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে সেই আর্জনগর এলাকায় জীবাণুমুক্ত করা হবে।

৬ নং ওয়ার্ডে নতুনপাড়ার ৭৪ বছরের মহিলা করোনা আক্রান্তের পর স্থানীয় তৃণমূলের পক্ষ থেকে বোয়ালিয়া বাজার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই ওয়ার্ডের পৌরমাতা দীপালি নস্করকে যখন চারিদিকে করোনার কারণে পুরো লকডাউন পরিস্থিতিতে মানুষ আতঙ্কিত তখন তাঁকে কোথাও দেখা যায় নি। করোনার দুর্ভোগে পৌরমাতাকে ওয়ার্ডের কোন বাসিন্দার পাশেও দেখা যায় নি। সকলে পৌরমাতার এই ভূমিকা নিয়ে খুবই অসন্তুষ্ট।

এই তিন করোনার কারণে কোয়ারেন্টিনে নিয়ে যাওয়ার পর গোটা গড়িয়া স্টেশন এলাকায় শুরু হয় আতঙ্ক। অনেক পাড়ায় এখন ব্যারিকেড করে দেওয়া হয়েছে। পুলিশ টহল দিচ্ছে গোটা গড়িয়ায়। আগামীকাল থেকে এই তিন ওয়ার্ডে বাজার ও দোকান খোলা নিয়ে এবং সামাজিক দুরত্ব নিয়ে মোকাবিলা করতে পুলিশের কড়াকড়ি শুরু হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *