Warning: mysqli_real_connect(): Headers and client library minor version mismatch. Headers:101106 Library:100236 in /home/u190665168/domains/takmaaa.com/public_html/wp-includes/wp-db.php on line 1653
মমতা ব্যানার্জি সোনার বাঘিনী বললেন মাধবী, ধন্যবাদ জ্ঞাপন করলেন অমিতাভ ও সাবানা, সিনেমার মধ্যে দিয়ে মত প্রকাশের অধিকার প্রয়োজন বললেন মমতা – takmaaa.com
You cannot copy content of this page. This is the right with takmaa only

মমতা ব্যানার্জি সোনার বাঘিনী বললেন মাধবী, ধন্যবাদ জ্ঞাপন করলেন অমিতাভ ও সাবানা, সিনেমার মধ্যে দিয়ে মত প্রকাশের অধিকার প্রয়োজন বললেন মমতা

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার পরিচালিত ২৫ তম আন্তর্জাতিক কলকাতা চলচ্চিত্র উৎসবের সমাপ্তি অনুষ্ঠান ছিল বর্ণাঢ্যময় যা অনুষ্ঠিত হয় নজরুল মঞ্চে।এই অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।এই মাসে ৮ই নভেম্বর এই অনুষ্ঠানের সূচনা হয় নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়াম থেকে যার শেষ হল আজ নজরুল মঞ্চে। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রঞ্জিত মল্লিক, পরিচালক গৌতম ঘোষ, পরমব্রত চ্যাটার্জি, অরিন্দম সীল, আবির চ্যাটার্জি, শতাব্দী রায়, শ্বাসত চ্যাটার্জি, রাজ চক্রবর্তী, শুভশ্রী গাঙ্গুলি, পঃ বিক্রম ঘোষ, রীতাভরি চক্রবর্তী, নির্দেশক হরনাথ চক্রবর্তী সহ অনেকে। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলেন অভিনেত্রী সাবানা আজমি এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন মাধবি মুখার্জি সহ উপস্থিত ছিলেন চলচ্চিত্র উৎসবে অংশগ্রহণকারী দেশ ও বিদেশের প্রতিনিধিগণ। এছাড়াও অতিথির আসনে উপস্থিত ছিলেন মেয়র ফিরাদ হাকিম, শোভনদেব চ্যাটার্জি, সুব্রত মুখার্জি, দেবাশিস কুমার, সুব্রত বক্সি, শশী পাঁজা, বৈশ্যানোর চ্যাটার্জি সহ অনেকে।

অনুষ্ঠানের সূচনায় ছিল অমিতাভ বচ্চনের উদ্বোধনী ভিডিও বক্তব্য দিয়ে কারণ তাঁর শারীরিক অসুস্থতার কারণে তিনি এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত হতে পারেন নি। বিগ-বি সবিস্তারে ভারতীয় সিনেমার ইতিহাস তুলে ধরেন এবং বলেন তাঁর কর্মজীবন শুরু এই কলকাতা দিয়ে এবং তাঁর অভিনয় জীবনের সূচনাও এই কলকাতা থেকেই। এরপর তিনি মমতা ব্যানার্জির উদ্দেশ্যে বলেন, তাই তাই তাই, মমতাদির বাড়ি যাই………। তিনি এমনও বলেন যে কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব দিনে দিনে সমৃদ্ধ হয়ে চলেছে যার জন্য আমি মমতা ব্যানার্জিকে ধন্যবাদ জানাই। আমি আশা রাখবো এই উৎসব একদিন সারা বিশ্বে সব থেকে জনপ্রিয় হয়ে উঠবে।

এরপর মাধবী মুখার্জি বলেন, আমি ৫০ বছর ধরে চলচ্চিত্র উৎসব দেখছি কিন্তু এর আগে কখনও এখানে কোন চলচ্চিত্র উৎসবে প্রতিযোগিতা হতে দেখিনি। এছাড়া আর্থিক পুরস্কারের কথা তো শুনিই নি। ধন্যবাদ জানাই মমতা ব্যানার্জিকে এধরনের একটা উদ্যোগ নেওয়ার জন্য। তিনিই প্রথম যিনি এই চলচ্চিত্র উৎসবে প্রতিযোগিতা এনেছেন এবং সেখানে আর্থিক পুরস্কার তুলে দিচ্ছেন। মমতা ব্যানার্জি সবাইকে নিয়ে চলতে শিখিয়েছেন। মমতা ব্যানার্জি প্রতিবছর আরও জনপ্রিয় করে তুলবেন এই উৎসবকে এই আশা রাখবো। আমি শুনলাম এই পুরস্কারের নামকরণ হয়েছে রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার কিন্তু আমি বলবো তিনি বাংলার তথা ভারতের গোল্ডেন রয়্যাল বেঙ্গল টাইগ্রেস মানে সোনার বাঘিনী। সকলকে তিনিই ঠিক রক্ষা করবেন।

অভিনেত্রী সাবানা আজমি বলেন, ভারতে ছবি তৈরি হয় ঠিকই কিন্তু সেই ছবি নিয়ে কেউ সেভাবে চিন্তা করে না। চলচ্চিত্র সমাজের আয়না। কিন্তু আমি বলবো যেভাবেই সিনেমা তৈরি হোক সেখানে বাক স্বাধীনতা থাকা প্রয়োজন এবং সেটাকে কোন ভাবেই বন্ধ হতে দেওয়া যাবে না। এরপর তাঁর বাবার এক সায়েরি দিয়ে শেষ করেন তাঁর বক্তব্য যার মানে হল যদি কখনও ঠোঁট সেলাই করে দেওয়া হয় তবে কথা বলার জন্য আওয়াজের ঝড় উঠবে।প্রতিবাদ হবে। আমি সত্যিই ধন্যবাদ জানাই এরকম একটা উদ্যোগ নেওয়ার জন্য।

সবশেষে যার উদ্যোগে এই এত বড় কর্মকান্ড সফল হয়েছে সেই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি বলেন, উৎসবের সঙ্গে যুক্ত সকলেই খুব ভাল কাজ করেছে এবার। সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই। আগামী বছরের পরিকল্পনা এখন থেকেই করতে হবে। রাজকে বলব– ২৬তম কলকাতা ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে কী কী হবে তার পরিকল্পনা আজ থেকেই শুরু হয়ে যাক। আমি মনে করি সিনেমার মধ্যে দিয়ে মত প্রকাশের অধিকারের প্রয়োজন আছে। তিনি বলেন এই চলচ্চিত্র উৎসব হলিউড, বলিউড এবং টলিউডের চলচ্চিত্র জগতের জন্য একটা সেতুর মতো কাজ করুক।এখানে বিদেশের বহু দেশ অংশগ্রহণ করেছে আমি চাইবো কলকাতা সবসময় সবাইকে আমন্ত্রণ জানায়, আতিথেয়াতা করে। আপনারা কেউ ভুলে যাবেন না কলকাতাকে। আগামী বছরও আপনাদের সাথে আবার দেখা হবে, এই আশাই রাখবো, আরও ভাল কিছু দেখতে পাবে দর্শকরা।

এবারের চলচ্চিত্র উৎসবের গোল্ডেন রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার পুরস্কার ও হীরালাল সেন স্মৃতি পুরস্কার প্রদান ছাড়াও বাকি সবকটা পুরস্কার তিনি বাকি অতিথিদের হাত দিয়ে তুলে দিতে সাহায্য করেন। এবারে সেরা আন্তর্জাতিক ছবির আর্থিক পুরস্কার ছিল ৫১ লাখ টাকা এবং সেরা আন্তর্জাতিক নির্দেশকের আর্থিক পুরস্কার ২১ লাখ টাকা। ২৫তম কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের সমাপ্তি অনুষ্ঠানে ছিল ডোনা গাঙ্গুলি ও সম্প্রদায়ের নৃত্য পরিবেশন।

দেখে নিন একনজরে পুরষ্কারের তালিকাঃ

Golden Royal Bengal Tiger Award for …
Best Film: The Weeping Woman (La llorona) directed by Jayro Bustamante
Best Director: Vaclav Marhoul for The Painted Bird (Nabarvene Ptace)

Best Indian Documentary Film: Abridged by director Gauri Puri
Best Indian Short Film: Summer Rhapsody by director Shravan Ketekaneni

Special Jury Award (among international films): Shpia E Ages (Aga’s House) directed by Lendita Zeqiraj and Special Jury Award (Indian films): Run Kalyani directed by Geeta J

Hiralal Sen Memorial Award (for Indian language films) for …
Best Film: Mai Ghat: Crime No 103/2005 directed by Ananth Mahadevan
Best Director: Indrashis Acharya (for Parcel)

NETPAC Award: Devi Aur Hero directed by Aditya Kripalini. ছবি : চুনী পাল ও অম্বর ভট্টাচার্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *